জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

মস্তিষ্কে নানা ইতিবাচক প্রভাব ফেলে যৌনতা। রুটজার বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞানী ব্যারি আর কোমিসারুক এ বিষয়ে গবেষণা করেন। যৌনতার সঙ্গে মস্তিষ্কে যা ঘটে যায় তা জানিয়েছেন তিনি। দেখে নিন, কিভাবে সেক্স মস্তিষ্কে আটভাবে প্রভাববিস্তার করে।
১. যৌনতা মাদকের মতো : সেক্স মস্তিষ্কে ভালো অনুভূতি দেয়। একজন সঙ্গী বা সঙ্গিনীর খোঁজ করতে উৎসাহিত করে। যৌনকর্মে প্রচুর ডোপামেন নিঃসৃত হয় যা মস্তিষ্কে সুখানুভূতি সৃষ্টি করে। এই উপাদানটি নেশাসৃষ্টিকারী বহু মাদকে পাওয়া যায়।
২. বিষণ্নতা বিনাশী : ২০০২ সালে আলবানি ইউনিভার্সিটির গবেষকরা ৩০০ জন নারীর ওপর গবেষণা চালিয়ে দেখেন, যারা কনডম ছাড়া সেক্স করেছেন তারা অন্যদের চেয়ে কম বিষণ্নতায় ভুগছেন। বীর্যের বিভিন্ন উপাদান নারীদেহ শুষে নেয়। এগুলো বিষণ্নতা দূর করতে সহায়তা করে। এসব উপাদান মানুষকে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ সম্পর্কে গড়তেও সহায়তা করে।
৩. মন খারাপও করে দেয় সেক্স : একই সঙ্গে সেক্স করার পর অনেকেরই মনটা খারাপ হয়ে যায়। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় একে বলে ‘পোস্টকোয়টাল ডাইফোরিয়া’। নারীদের ওপর এক গবেষণায় দেখা গেছে, তাদের এক-তৃতীয়াংশ মন খারাপ সমস্যায় ভুগছেন। এর কারণ এখনো স্পষ্ট নয় বিজ্ঞানীদের কাছে।
৪. ব্যথা দূর করে : মাথাব্যথার কারণে যৌনতা এড়িয়ে যাবেন না। ২০১৩ সালে জার্মানির এক গবেষণায় দেখা গেছে, মাথাব্যথা অবস্থায় সেক্স করার পর অংশগ্রহণকারীদের সাধারণ ব্যথাসহ মাইগ্রেনের ব্যথা ৩০ শতাংশ কমে গেছে।
৫. স্মৃতিশক্তি পরিষ্কার করে : প্রতিবছর প্রতি ১ লাখ মানুষের মধ্যে সাতজন অ্যামনেশিয়ায় আক্রান্ত হন। মানসিক পীড়ার কারণে স্ট্রেস দেখা দেয়। এ অবস্থায় মানুষের স্মৃতিশক্তি কাজ করে না। কিন্তু এ অবস্থা থেকে মুক্তি মেলে সেক্স। মাথা পরিষ্কার হয়ে যাবে এবং স্মৃতিশক্তি ফিরে আসবে।
৬. স্মৃতিশক্তি বাড়ায় : ২০১০ সালের এক গবেষণায় বলা হয়, প্রতি ১৪ দিনে এক বার সেক্স করার কারণে মানুষের স্মৃতিশক্তি বেড়ে গেছে। যৌনতা মস্তিষ্কের বিশের এক অংশের নিউরনের পরিমাণ বৃদ্ধি করে যা স্মৃতিশক্তি বাড়ায়।
৭. উত্তেজনা প্রশমন করে : যেহেতু যৌনতা মস্তিষ্কের সঙ্গে যুক্ত, তাই এর কারণে মানসিক চাপ দূর হয়। যারা সেক্স করেন, তারা স্ট্রেস পূর্ণ পরিবেশে দারুণভাবে নিজেকে এগিয়ে নিতে পারেন।
৮. ঘুম আনে : সেক্স আপনাকে শান্তির ঘুম দেবে। মস্তিষ্কের প্রিফ্রন্টাল কর্টেক্স নামক অংশের উত্তেজনা প্রশমিত হয় যৌনতার পর। এতে অক্সিটোসিন এবং সেরোটনিন হরমোন নিঃসৃত হয়। এগুলো মানুষকে ঘুমাতে সহায়তা করে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: