জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

পানির নীচে কাজ করবে এমন একটি হেডফোন এবং এমপি-থ্রি প্লেয়ার তৈরি করা গেছে। ফলে সাঁতার কাটতে কাটতে গান শোনার ইচ্ছা এবার বাস্তব রূপ লাভ করতে যাচ্ছে।
এ যন্ত্রের হেডফোন লাগানো থাকবে কপোলের পাশে। ফলে চিকবোন বা চোখের নিম্নাংশের হাড়ের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে মানব দেহের অন্তঃকর্ণের একটি অংশ শম্বুকর্ণ বা ককলিয়ারে প্রবেশ করবে শব্দতরঙ্গ এবং তা মস্তিষ্কে শব্দ শোনা যাবে।
আপনি শুনলে হয়ত অবাক হবেন পানির নীচের বাতাসবিহীন পরিবেশে ডলফিন এবং তিমিরা যোগাযোগ করার কাজে একই পদ্ধতিতে শব্দতরঙ্গ প্রেরণ করে।
নতুন এ যন্ত্রের ক্ষেত্রে পানিরোধক একটি এমপি-থ্রি থ্রি প্লেয়ার সঙ্গীত প্রবাহকে হাড়ের মধ্যে দিয়ে অত্যন্ত স্পর্শকাতর ককলিয়া বা শম্বুকর্ণে প্রেরণ করবে। আর সাঁতারু শুনতে পাবেন সঙ্গীত বেজে উঠছে তার মস্তিষ্কে। অবশ্য প্রথম প্রথম হয়ত মস্তিষ্কে সুরের এ মূর্ছনাকে উতপাত বলে মনে হতে পারে ।
এমনটি ধারণা করছেন নেপচুন নামের এ যন্ত্রের নির্মাতারা। কিন্তু কয়েকদিনের অভ্যাসেই তা সয়ে যাবে এবং উপভোগ করা যাবে সঙ্গীত। এমনটি ধারণা করা হচ্ছে। এক হাজার সঙ্গীতসহ এমন একটি যন্ত্রের দাম পড়বে একশ ডলারের বেশি।
অবশ্য বাজারের নিয়ম অনুযায়ী এ যন্ত্রের দাম দ্রুতই সাধারণ মানুষের নাগালে চলে আসবে।
তবে যন্ত্রটি একদম নতুন আবিষ্কার করা হয়েছে ভাবলে ভুল হবে। ১৯৭০এর দশকে এ জাতীয় একটি যন্ত্র বের হয়েছিল। গলায় ঝোলাতে হতো বোনফোন নামের যন্ত্রটিকে এবং সেটি কণ্ঠার হাড় বা কলারবোনের মাধ্যমে শব্দ তরঙ্গ প্রেরণ করতো।
বোনফোন জনপ্রিয় হয়নি এবং ও প্রযুক্তি নিয়ে আর কেউই এতকাল মাথা ঘামাননি। এবারে নতুন রূপে যে প্রযুক্তিকে বাজারে নিয়ে আসা হলো।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: