জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

ভুট্টা, অতি সাধারণ একটি খাবারের নাম। সহজে চাষযোগ্য হওয়ায় বাংলাদেশে এর ফলন উল্লেখ করার মতো। ভুট্টার দাম হাতের নাগালে থাকায় এর বহুবিধ ব্যবহার চোখে পড়ে। শীতের এই সময়টাই বেবিকর্ণ বা ছোট ভুট্টা তরকারি, পরিপক্ক কাঁচা ভুট্টা পুড়িয়ে খাওয়াসহ ভুট্টার আটা নানা সুস্বাদু রান্নায় ব্যবহার হয়।
ভুট্টার আটার রুটি খাওয়ার প্রচলন আছে অনেক জায়গায়। উচ্চ মাত্রায় পুষ্টি সমৃদ্ধ এ খাবারের পুষ্টিগুণ সম্পর্কে আমরা সবাই কমবেশি জানি। তবু আজ জেনে নেব চেনা ভুট্টার অজানা কিছু পুষ্টিগুণ সম্পর্কে।
* ভুট্টা উচ্চ শর্করা সমৃদ্ধ। অনেকেই তাদের দেহের শক্তি বৃদ্ধির জন্য ভুট্টাকে বেশি প্রাধান্য দেন। সকালের নাস্তায় ভুট্টাজাত খাবার খেলে সারাদিন পর্যাপ্ত পরিমাণ পুষ্টির যোগান নিশ্চিত হয়।
* ভুট্টাকে পর্যাপ্ত পরিমাণ খনিজ ও ভিটানের উৎস হিসেবেও ধরা হয়। এতে আছে উচ্চমাত্রার আয়রণ ও ম্যাঙ্গানিজ। আপনার দেহে অনাকাঙ্ক্ষিত জীবানু প্রবেশে বাধা দিয়ে শরীরকে রাখবে সুস্থ-সবল।
* ভুট্টার তেলে প্রচুর পরিমানে এ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে। পশু চর্বির মতো কোনো প্রকার ক্ষতিকারক দিক এই তেলে নেই। দেহের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে ভুট্টার তেলের তুলনা হয় না।
* এককাপ রান্না করা ভুট্টায় পাবেন ১৭৮ কিলো ক্যালোরি শক্তি। দিনভর সবল থাকতে প্রতিদিন সকালে খেতে পারেন ভুট্টা জাত খাবার। পরীক্ষা করে দেখা গেছে, যারা নিয়মিত ভুট্টার তৈরি খাবার খান তাদের শরীরে অতি উচ্চ মাত্রার ক্যালরি জমা থাকে। উদাহরণ হিসেবে আফ্রিকানদের কথা বলা যেতে পারে। তাদের প্রাধান খাদ্য ভুট্টাজাত বলেই এটি সম্ভব হয়েছে বলে গবেষকদের ধারণা।
* ভুট্টা পটাশিয়ামের একটি আদর্শ উৎস, অন্যদিকে উচ্চ রক্তচাপ বৃদ্ধিকারী সোডিয়ামের পরিমাণ আছে খুবই কম পরিমাণ।
* ভুট্টায় পাবেন পর্যাপ্ত পরিমানে ভিটামিন ‘কে’। আমাদের দেশের বয়স্ক নারীদের কোমরের হাড় ক্ষয়ে যাওয় অতি সাধারণ ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। হাড় ক্ষয়ে যাওয়া বা ভেঙে যাওয়া প্রতিরোধে দারুন কার্যকর ভিটামিন ‘কে’। তাই নিজেদের সুস্থ রাখতে প্রত্যেক নারীই ভুট্টাজাত খাবার খেতে পারেন।
* ভুট্টায় ভিটামিন বি১২ রয়েছে যা নতুন রক্তকোষ তৈরিতে সাহায্য করে। এতে রক্তস্বল্পতা দূর হয়।
* ভুট্টার ভিটামিন ‘এ’ চুলের হারিয়ে যাওয়া কোমলতা ফিরিয়ে এনে চুলকে আরও উজ্জ্বল ও স্বাস্থ্যকর করে তোলে। এছাড়া দৃষ্টিশক্তি প্রখর করতেও সাহায্য করে।
* ভিটামিন এ, সি ও লাইকোপিন ত্বককে উজ্জ্বল করে ও ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা দূরে রাখে।
* ভুট্টা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতেও কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: