জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

প্রতিটি মানুষই চায় নিজ নিজ জীবন নিয়ে সুন্দর ভাবে বেঁচে থাকতে। কিন্তু জীবনে চলার পথে আমাদের সাথে এমন অনেক ঘটনা ঘটে এবং এমন কিছু অভ্যাস আমরা তৈরি করে থাকি যা সাধারণ মনে হলেও এই বিষয়গুলো আমাদের মৃত্যুর কারণও হতে পারে। তাই সতর্ক থাকতে জেনে রাখুন বিষয়গুলো।
অতিরিক্তি টিভি দেখা
আমেরিকান হার্ট এসোসিয়েশনের গবেষণা অনুযায়ী বলা হয়েছে, যে সকল মানুষেরা প্রতিদিন ৩ ঘণ্টার বেশি টিভি দেখেন কিংবা দিনে ২/৩ বার দীর্ঘক্ষণ টিভি দেখেন তাদের অকালে মৃত্যুর সম্ভবনা বেশি থাকে। তাই অতিরিক্ত টিভি দেখা থেকে বিরত থাকুন।
পেটের অতিরিক্ত মেদ
মেদবহুল পেট দেহের ক্ষতি করতে পারে এবং বিজ্ঞানীরা একটি নতুন পদ্ধতি বের করেছেন যার মাধ্যমে বিশেষ ভাবে পেটের মেদ ঝুঁকি নির্ধারণ করা যাবে। এবং এই নতুন পদ্ধতির নাম দেয়া হয়েছে A Body Shape Index( ABSI) । তাই সুস্থ থাকতে নিয়মিত ব্যায়াম করুন এবং পেতে যেন অতিরিক্তি মেদ বৃদ্ধি না পায় সেদিক খেয়াল রাখুন।
কম ক্যালোরির খাবার
মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটির একটি গবেষণায় বলা হয়েছে কম ক্যালোরির খাবার দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা নষ্ট করতে পারে এবং দেহের রোগ প্রতিরোধ খমতা নষ্ট হয়ে গেলে আপনার মৃত্যুও হতে পারে।
দিনে ৩ গ্লাসের বেশি দুধ পান করা
ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নাল এর গবেষণায় বলা হয়েছে যে, প্রতিদিন ৩ গ্লাসের বেশি দুধ পান করলে তা আপনাকে মৃত্যুর খুব কাছে নিয়ে যাবে।
দুপুরে ঘুমানো
গবেষণায় বলা হয়েছে, মধ্য বয়স্ক কিংবা প্রাপ্তবয়স্ক মানুষেরা প্রিতিদিন যদি দুপুরে ঘুমিয়ে থাকেন তাহলে এই ঘুম তার মৃত্যুর কারণ হতে পারে। বিশেষ করে দুপুরে ঘুমের কারণে শ্বাসযন্ত্রের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায় এবং এই সমস্যায় মৃত্যুও হতে পারে। ইউনিভার্সিটি অফ ক্যামব্রিজের তথ্য অনুযায়ী বলা হয়েছে, যারা দুপুরে ঘুমান না তাদের তুলনায় ৪০ এবং ৬৫ বছরের মানুষ যারা প্রিতিদিন দুপুরে একঘণ্টা করে ঘুমিয়ে থাকেন তাদের মৃত্যুর হার দ্বিগুণ বৃদ্ধি পায়।
ডিভোর্স
একটু নতুন গবেষণায় বলা হয়েছে, যে সকল মানুষ যাদের মাত্রই ডিভোর্স হয়েছে এবং এর কারণে রাতে ঘুমাতে পারছেন না, তারা ব্লাড প্রেশার সমস্যায় ভুগতে পারেন যা মৃত্যুর কারণ। ইউনিভার্সিটি অফ এরিজোনার সহরচয়িতা ডাঃ ডেভিড সাবাররা গবেষণা করে বের করেছেন, যারা ডিভোর্সের কারণে ঘুমাতে পারছেন না এবং এই সমস্যাটি যদি অনেকদিন ধরে চলতে থাকে এই সমস্যার আসল কারণ হল বিষণ্ণতা যা মানুষের অন্যতম স্বাস্থ্য সমস্যা।
এনার্জি ড্রিঙ্কস
অনেকেই আছেন শরীর দুর্বল লাগলেই এনার্জি ড্রিঙ্কস খেয়ে থাকেন, কিন্তু এই ড্রিঙ্ক আপনার মৃত্যুরও কারণ হতে পারে। দি ইউরোপ ফুড সেফটি অথোরিটি, গবেষণা করে জানিয়েছেন এনার্জি ড্রিঙ্কগুলোতে থাকে ক্যাফেইন ও ইনটক্সিকেশন উপাদান যার মাধ্যমে হার্ট ধড়ফড় করা, উচ্চ রক্তচাপ, বমি বমি ভাব এবং বমি, খিঁচুনি, মানসিক সমস্যা এবং আরও অনেক স্বাস্থ্য সমস্যা যার কারণে শেষ পর্যন্ত হয় মৃত্যু।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: