জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

মহিলারাই হারিয়ে দিলেন পুরুষদের৷ তাও আবার, কম বয়সিরাই৷ তবে, এমন ঘটনার জেরে মোটেও খুশি হতে পারছেন না বিশেষজ্ঞরা৷ বরং, তাঁরা একই সঙ্গে উদ্বিগ্ন এবং যারপরনায় আতঙ্কিত৷

তথাকথিত ‘পুরুষশাসিত সমাজে’ মহিলারা জিতে গেলেন বলেই যে বিশেষজ্ঞরা উদ্বিগ্ন এবং আতঙ্কিত, তা কিন্তু নয়৷কারণ, অন্য৷আর, সেই কারণের কথা জানলে, খুশি হতে পারবেন না স্বয়ং মহিলারাই৷পুরুষদের হারিয়ে দেওয়া সত্ত্বেও তাঁদের চিন্তা বাড়বে ছাড়া কমবে না৷
কারণ, ডায়াবেটিস৷সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় প্রকাশ, পুরুষদের তুলনায় অনেক বেশি সংখ্যক মহিলা আক্রান্ত হচ্ছেন নিঃশব্দ ঘাতক হিসেবে পরিচিত এই রোগে৷তাও অনেক ক্ষেত্রে আবার মহিলারা নিজের অজান্তেই আক্রান্ত হয়ে পড়ছেন ডায়াবেটিসে৷ বেসরকারি সংস্থা হিসেবে তথ্য-প্রযুক্তি ক্ষেত্রে কর্মরতদের মধ্যেও বেশি দেখা যাচ্ছে ডায়াবেটিসে আক্রান্তের হার৷
বণিকসভা অ্যাসোচেমের ওই সমীক্ষায় প্রকাশ, পুরুষরা যেখানে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছেন ২৫ শতাংশ হারে, সেখানে মহিলাদের মধ্যে আক্রান্তের হার ৪২ শতাংশ৷ যদিও ডায়াবেটিসে সব থেকে বেশি আক্রান্তের হার দেখা যাচ্ছে রাজধানী, দিল্লিতে (বৃহত্তর দিল্লি)৷ তার পরের স্থানে যথাক্রমে রয়েছে মুম্বই এবং আমেদাবাদে৷এ ক্ষেত্রে কলকাতার স্থান সাত নম্বরে৷ তবে, শুধুমাত্র দেশের অন্যান্য শহরের কম বয়সি মহিলারাই নন৷ পুরুষদের তুলনায় ডায়াবেটিসে বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন কলকাতার মহিলারাও৷
শহরাঞ্চলের মহিলারাই যে আবার বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন, তাও কিন্তু নয়৷ কারণ, রেয়াত পাচ্ছেন না গ্রামাঞ্চলের মহিলারাও৷অ্যাসোচেমের ওই সমীক্ষায় প্রকাশ, ২০ থেকে ২৯ বছর বয়সিদের মধ্যে ডায়াবেটিস দেখা যাচ্ছে ৫৫ শতাংশ হারে৷নিঃশব্দ ঘাতক এই রোগে আক্রান্তের হার ৩০ থেকে ৩৯ বছর বয়সিদের মধ্যে ২৬ এবং ৪০ থেকে ৪৯ বছর বয়সিদের মধ্যে ১৬ শতাংশ৷ অন্যদিকে, ৫০ থেকে ৫৯ বছর বয়সিদের মধ্যে ডায়াবেটিসে আক্রান্তের হার দুই শতাংশ৷আর, ৬০ থেকে ৬৯ বছর বয়সিদের মধ্যে ওই হার এক শতাংশের মতো৷
অ্যাসোচেমের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত কমিটির চেয়ারম্যান ডা: বি কে রাওয়ের কথায়, ‘২০ থেকে ৩০ বছর বয়সিদের মধ্যে ডায়াবেটিসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে ২৮ শতাংশ হারে৷ অন্যদিকে, ৩০ থেকে ৪০ বছর বয়সিদের মধ্যে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে অধিকমাত্রায়৷’ যেভাবে অতিরিক্ত পরিমাণে জাঙ্ক ফুড এবং মিষ্টি জাতীয় খাবারের প্রতি আগ্রহ দেখা যাচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ বছরের মহিলাদের মধ্যে, তাতেও ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যাচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি৷বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, ডায়াবেটিসের বিষয়ে যত বাড়বে সচেতনতা, তত বেশি এড়ানো সম্ভব হবে নিঃশব্দ ঘাতক এই রোগকে৷

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: