জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

gggবয়সে ছোট পুরুষসঙ্গী নারীর মনোবলই কেবল বাড়ায়না-এতে তার সন্তান জন্মদানের সম্ভাবনাও বাড়ে। একদল কানাডিয়ান চিকিৎসক বলছেন, ৪০ বছর বয়সে কোনো নারী যদি মা হতে চান, তার উচিত তরুণ পুরুষসঙ্গী খোঁজা।

সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, ৪০-।ঊর্ধ্ব যেসব নারীর পুরুষসঙ্গীর বয়স ৪৪ বা তারও বেশি, তাদের মা হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম। অথচ, বয়সে ছোট পুরুষসঙ্গী থাকায় ৪০ এর বেশি বয়সী অনেক নারীই গর্ভধারণে সক্ষম হয়েছেন।

প্রেমিক রাজ কুন্দ্রের চেয়ে বয়সে বড় শিল্পা রাজকে নিয়ে অনেক আত্মবিশ্বাসী

ইন ভিট্রো ফারটিলাইজেশন বা আইভিএফ (শরীরের বাইরে কোনো ল্যাবরেটরিতে পুরুষের শুক্রাণু ও নারীর ডিম্বাণু সংরক্ষণের মাধ্যমে সন্তান জন্মদানই এ পদ্ধতির মূল বৈশিষ্ট্য) এর মাধ্যমে মা হয়েছেন বা হতে চেয়েছেন ৪০ থেকে ৪৬ বছর বয়সী এমন ৬৩১ জন মহিলার ওপর এই গবেষণা পরিচালনা করা হয়। ওই সব নারীর সঙ্গীদের বয়স ২৫ থেকে ৭৫ এর মধ্যে।

সন্তান থাকা না থাকার ভিত্তিতে গবষেণায় অংশগ্রহণকারী নারীদের ২ ভাগে ভাগ করা হয়। দেখা গেছে, নির্দিষ্ট সময় পর আর বাবা হতে পারেন নি এমন বেশির ভাগ পুরুষের বয়স ৪৩ বা তার বেশি। এক্ষেত্রে নারীর বয়স কোন প্রভাব ফেলেনি।

কানাডিয়ান ওই গবেষকরা বলছেন, সমস্যা মূলত পুরুষের স্পার্মে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে স্পার্মের গুণগত মানও পড়ে যায়। একজন যুবতী নারীর ডিম্বাশয় স্পার্মের গুণগত অপূর্ণতা মেরামতে সক্ষম। কিন্তু বেশি বয়সী ডিম্বাশয় তা কাটিয়ে উঠতে পারেনা।

গবেষক দলের প্রধান মন্ট্রিলের ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইকেল ডাহান বলছেন, বয়স্ক মহিলাদের ক্ষেত্রে তরুণ সঙ্গী বেছে নেওয়া এক্ষত্রে সমাধান হতে পারে। কারণ, তরুণদের স্পার্মের গুণগত মান ভালো অবস্থায় থাকে।

তিনি বলেন, আদর্শ পছন্দ হল- সঙ্গী হিসেবে যত কম বয়সী তরুণ পান ততই মঙ্গল।

ধারণা করা হচ্ছে, এই গবেষণা বয়ষ্ক মহিলাদের তরুণ সঙ্গী বেছে নেওয়ার যুক্তি হিসেবে জৈব কারণকে আরও জোরালো করবে।

বাস্তবে এর প্রমাণও রয়েছে। হলিউডের প্রখ্যাত নারী চলচ্চিত্র পরিচালক ৪৭ বছর বয়সী স্যাম গত বছর দ্বিতীয় সন্তানের মা হয়েছেন। সেই সন্তানের বাবা অ্যারন তার থেকে ২৩ বছরের ছোট। আরেক নারী তারকা ৪৮ বছর বয়সী হ্যালি ব্যারি তার থেকে ৯ বছরের ছোট গ্যাব্রিয়েল আব্রির সন্তানের মা হয়েছেন।

সম্প্রতি হনুলুলুতে অনুষ্ঠিত আমেরিকান সোসাইটি ফর রিপ্রডাকটিভ মেডিসিনের বার্ষিক সম্মেলনে নারীর মতো পুরুষেরও ‘জৈব ঘড়ি’ রয়েছে তার প্রথম প্রমাণ হিসেবে গবষেণা প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করা হয়।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: