জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

lemonনৈমত্তিক জীবনে এক গ্লাস লেবুপানি হয়ে উঠতে পারে আপনার সবচেয়ে উপকারী বন্ধু
আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‌’সি’- লেবু গুণাগুণ সম্পর্কে অধিকাংশজনের জানাশোনার পরিধিটা এইটুকুই। অথচ অতিচেনা লেবুতে রয়েছে অজানা আরো অনেক গুণাবলী। কেবল খাবারের স্বাদ বাড়াতে নয়, রোগপ্রতিরোধেও বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে লেবু। চিকিৎসকরা তাই বলছেন, শরীরিক সুস্থতার জন্য নিয়ম করে লেবু খাওয়া উচিত প্রতিদিন। নৈমত্তিক জীবনে এক গ্লাস লেবুপানি কিভাবে হয়ে উঠতে পারে আপনার সবচেয়ে উপকারী বন্ধুটি- চলুন জেনে নেওয়া যাক

যদি ওজন কমাতে চান
বিস্তর ব্যায়ামেও মিলছে না সুফল? প্রতিনিয়ত মুটিয়ে যাচ্ছেন একটু একটু করে? দেরি না করে তাহলে আজ থেকেই হালকা গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করুন। সকালে ঘুম থেকে জেগে নিয়মিত খালি পেটে পান করুন লেবুপানি। ফল পাবেন হাতেনাতে, খুব দ্রুত।

দেহের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে
প্রতিদিন এক গ্লাস লেবুপানি আপনার শরীরযন্ত্রের সিস্টেমকে ঠিকঠাক রাখতে সাহায্য করবে। গবেষনায় দেখা গেছে, প্রতিদিন লেবুপানি পান করা লোক একটু বেশিই সুস্থভাবে যাপন করেন জীবন। কারণ লেবুর রস মেশানো পানি বাড়ায় আপনার রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা।সুস্থতায় লেবুপানি প্রতিদিন

লেবুতে এমন কিছু উপাদান আছে, যা ব্যাকটেরিয়ার সঙ্গে লড়াই করে ঠান্ডা, সর্দি, কাশির বিরুদ্ধে গড়ে তোলে শক্ত প্রতিরোধ।

ত্বক পরিস্কার রাখে লেবু
ত্বক পরিস্কার রাখতে ও উজ্বলতা বাড়াতে লেবুপানি তুলনাহীন। লেবুতে থাকা ভিটামিন-সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ধ্বংস করে ত্বকের ফ্রি র‌্যাডিকেল। এই ফ্রি র‌্যাডিকেলের জন্যই বুড়িয়ে যায় আপনার ত্বক। ত্বক উচ্ছ্বল এবং তারুণদীপ্ত রাখতে তাই লেবুর সহায় নিতেই পারেন।

কমাতে মানসিক চাপ
দৈহিক শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে লেবুর ভিটামিন ও মিনারেল। মানসিক চাপে কিংবা উদ্বেগে লেবুপানি মহৌষধের কাজ করবে। দুম করে কমিয়ে দেবে সব যন্ত্রণা-চাপ। লেবুর সুঘ্রান নার্ভ সিস্টেমকে তরতাজা ও চাঙ্গা করে তুলতে পারে অনায়াসেই।সুস্থতায় লেবুপানি প্রতিদিন

নিঃশ্বাসে সতেজতা আনে লেবু
মুখের ভেতরের ব্যাকটেরিয়া এবং অন্যান্য ক্ষতিকর উপাদান ধুয়ে মুছে দিতে গরম পানিতে লেবু রস ভীষণ উপকারি। গরম পানির সঙ্গে লেবুর রস পান করলে দাঁতের ব্যথা এবং জিঞ্জিভাইটিসেরও উপশম হয়। তবে লেবুপানি খাওয়ার পরপর দাঁত ব্রাশ করা অত্যাবশ্যকীয়। কারণ লেবুর সাইট্রিক এসিড দাঁতের এনামেল ক্ষয় করে ফেলে।

তৃপ্তির ঢেকুর তুলতে
হজমে সমস্য থাকলে এক গ্লাস লেবুপানি পান করতে পারেন। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখতে পারেন লেবু পানি। তাছাড়া কখনো কখনো আপনি অম্বল, বমি বমি ভাব, বদহজম ইত্যাদি সমস্যায় ভুগলেও লেবুপানিতে পাবেন উপশম।

চিকিৎসা কাজে লেবুসুস্থতায় লেবুপানি প্রতিদিন
লেবুতে থাকা প্রচুর পরিমানে অ্যাসকোরবিক এসিড প্রাকৃতিক চিকিৎসাপ্রণালী হিসেবে করতে পারে কাজ। শরীরের কোথাও ক্ষত তৈরি হলে অবলীলায় পানির সাথে মিশিয়ে একটু লেবু রস দিয়ে নিন। হয়তো একটু জ্বলুনি হবে, তবে ক্ষত সেরে যাবে খুব দ্রুত। অ্যাসকোরবিক এসিড হাড়, টিস্যু মজবুত রাখতেও সাহায্য করবে।

চা-কফির বদলে লেবু পানি
ক্লান্তি দূর করতে চা-কফি খাওয়ার অভ্যাসঅলা লোকের অভাব নেই। তবে সাময়িকভাবে ক্লান্তভাব কেটে গেলেও, চা-কফি কিন্তু শরীরের জন্য উপকারী নয় মোটেও। এরচেয়ে বরং লেবুপানি আপনাকে দিতে পারে আরো বেশি সতেজতা।

সমকাল

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: