জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে আবারো সমালোচনায় এসেছেন সারাহ পালিন। ধারণা করা হচ্ছে পালিন আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হবেন। পালিনের এই ঘোষণা যেমন মিডিয়াগুলোর জন্য যেমন বড় খবর তেমনিভাবে চমকে উঠেছে তার রিপাবলিকান পার্টি। ২০১০ পর্যন্ত তার অফিস করার কথা থাকলেও কোনো ব্যাখ্যা না দিয়েই পদত্যাগের ঘোষণা দিলেন পালিন। বর্তমানে ৫ সন্তানের মা পালিনের জীবনের একটি বড় ব্রত ছিল ‘জনগণের জন্য কাজ করা। সাংবাদিকতা ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অর্নাস করা পালিনের জীবনে এসেছে নানা ঘটনা। সুন্দরী হিসেবে যেমন প্রশংসা কুড়িয়েছেন তেমনি ভাইস হিসেবে বাইডেন তাকে মনোনীত করার পর তিনি কাজের যোগ্য নন এমন অভিযোগও শুনতে হয়েছে। তেমনিভাবে নির্বাচনের আগে পালিনের অবিবাহিত মেয়ের গর্ভবতী হওয়ার ঘটনায়ও কঠোর সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছেন। সুন্দরী সারাহ পালিন ১৯৮৭ সালে আইদাহো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতা ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানে øাতক শেষ করেন। আলাস্কার গভর্নর নির্বাচিত হবার আগে ১৯৯৬ থেকে ২০০২ পর্যন্ত ওয়াসিল্লার শহরের মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৬ সালে আলাস্কার প্রথম ও সর্বকনিষ্ঠ নারী গর্ভনর হিসেবে নির্বাচিত হন। এর দুবছর পর ম্যাককেইন পালিনকে রানিংমেট হিসেবে মনোনীত করলে রিপাবলিকান দলের ইতিহাসের প্রথম নারী হিসেবে ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীর পদটি পান। মনোনয়ন দেয়ার পর পালিন সর্ম্পকে ম্যাককেইন ভালো মানসিকতা, প্রতিকূল অবস্থার সঙ্গে ঠিকে থাকার মানসিকতা, গভীর সদিচ্ছার প্রশংসা করেন। পালিন সবসময় বলে আসছেন রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে জনগণের পছন্দকেই সবচে বেশি গুরুত্ব দেন। পালিন গর্ভপাতের ঘোর বিরোধী। ৫ সন্তানের জননী পালিনের সর্বশেষ সন্তানের জš§ হয় এ বছরের এপ্রিলে। পালিনের সবচে বড় ছেলে সামরিক বাহিনীতে কর্মরত।

বিভিন্ন সময়েই নানা কারণে সমালোচিত হয়েছেন পালিন। সবচে বেশি সমালোচিত হয়েছেন নিজের অভিজ্ঞতার জন্য, সৌন্দর্যের পেছনে বেশি সময় ও অর্থ ব্যয়, নিজের অবিবাহিত মেয়ের গর্ভবতী হওয়া নিয়ে। ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন এমন অভিযোগে রাজ্যের আইনজীবীদের তদন্তের সম্মুখীনও হয়েছেন পালিন। অন্যদিকে আলাস্কার একজন আইনজীবীকে বরখাস্ত করায় তার বিরুদ্ধে নৈতকতা লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছে। পালিনকে নিয়ে কৌতুক অভিনেতারা অনেক সময় উপহাসও করেছেন। একজন গর্ভনর হলেও দেশের বাইরে ভ্রমণের অভিজ্ঞতাও পালিনের বেশি নয়। কানাডা কুয়েত এবং জার্মানিতে গিয়েছেন পালিন যেখানে মার্কিন সেনাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। এতো কিছুর পরও এগিয়ে চলার ব্রত পালিনের। সম্প্রতি নিউজ উইকের একটি জরিপে ২০১২ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে পালিনকে প্রথম সারির একজন প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দেয়। তবে এখন পালিন-ম্যাককেইন জোট সফল না হলেও আশা করা হচ্ছে যে পালিনের অনেক কিছু দেয়ার আছে।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: