জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

griffith300সাধারণ বায়ুচালিত টারবাইনগুলো যতো উঁচুতে স্থাপন করা সম্ভব ততো বেশি স্বাভাবিক গতিতে চলতে সক্ষম হয় সেগুলো। সউল এমন কিছু ঘুড়ির নকশা প্রণয়নে ব্যস্ত আছেন যা অনেক উঁচুতে ওড়ানো সম্ভব হবে এবং এদের সাহায্যে স্বল্প খরচে স্থির মাত্রায় বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব হবে
সোহরাব সুমন

বস্তুবিজ্ঞান এবং মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ওপর বহুমাত্রিক ডিগ্রিধারী ৩৫ বছর বয়স্ক অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক সউল গ্রিফিথ মাথায় হাজার হাজার আইডিয়া নিয়ে ঘুরে বেড়ান। প্রতিনিয়ত তার মাথায় বিচিত্র সব চিন্তা-ভাবনা গিজ গিজ করে। এরই মধ্যে নিজ আবিষ্কারের জন্য বেশ কতোগুলো পুরস্কার জিতে নিতে সমর্থ হয়েছেন তিনি। প্রতিষ্ঠা করেছেন অনেক যুগান্তকারী কোম্পানি। স্কুইড ল্যাব এবং মাকানি পাওয়ার এদের অন্যতম। সম্প্রতি তিনি আকাশের খুব উঁচুতে উড়তে সক্ষম এমন ঘুড়ির সাহায্যে জলবায়ু পরিবর্তনের গতি হ্রাস করার কথা বলে আবার আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে এসেছেন। আর এ সুযোগে তিনি সবুজ প্রকৌশল স¤পর্কে নিজস্ব কৃৎকৌশল ও চিন্তা-ভাবনা সংবাদ মাধ্যমের কাছে তুলে ধরতে সচেষ্ট হয়েছেন। অবিরাম প্রচেষ্টা ও চর্চার মাধ্যমে যে কোনো বিষয়ে দক্ষতা অর্জন সম্ভব এ বিষয়টিই তাকে যাবতীয় কাজের অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে বলে জানান তিনি। সেসঙ্গে বলেন, বর্তমানে আমরা অব্যাহতভাবে জলবায়ু পরিবর্তনের স্বীকার তাই সম্পদের যথেচ্ছ ব্যবহারে বিশ্ববাসীকে প্রচ-ভাবে সচেতন হতে হবে। বর্তমানে বিশ্ববাসীর চিন্তা-ভাবনাটাই এমন যে তারা ভাবছে শক্তিই পণ্য উৎপাদনের অন্যতম হাতিয়ার। তাদের ধারণা এগুলো তাদের জীবনকাল বহুগুণে দীর্ঘায়িত করতে সক্ষম। তার মতে প্রকৌশলীরা খুব সহজেই বর্তমানে বিরাজমান যাবতীয় পরিবেশগত সমস্যাগুলোর সমাধান করতে সক্ষম। এখন কেবল প্রয়োজন নীতিনির্ধারকদের অঙ্গুলি নির্দেশ ও যথাযথ অর্থনৈতিক সমর্থন। তার মতে, আবহম-লে কার্বনের নির্দেশিত মাত্রাকে টার্গেট ধরে নিয়ে আমরা পর্যাপ্ত সংখ্যক বায়ুকল সোলার সেল, জিওথার্মাল পাওয়ার স্টেশন, নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্ট নির্মাণ করতে পারি যদিও কাজটা খুব সহজ নয়। সবার প্রথমে আমাদের বর্তমান জীবনধারায় আমূল পরিবর্তন আসা খুবই জরুরি।
স্বল্পপরিমাণ শক্তি ব্যবহারে আমাদের অভ্যস্ত হওয়া উচিত। কেবল জীবনযাপন পদ্ধতির মান উন্নয়নের মাধ্যমেই তা সম্ভব। শিশুদের ছায়া ঢাকা পথ ধরে হেঁটে স্কুলে যেতে অভ্যস্ত করে তোলা উচিত। এভাবে শক্তির ব্যবহার কমাবার আরো অনেক পথ খোলা আছে আমাদের সামনে। এর জন্য সবার আগে আমাদের খোলা মনে ভাবার মানসিকতা অর্জন করতে হবে। নিজ প্রতিষ্ঠান মাকনাই পাওয়ারকে সঙ্গে নিয়ে সে লক্ষ্যকে সামনে রেখে অনন্য এক প্রকৌশলগত বিষয় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। ঘুড়ি থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন যার লক্ষ্য। ভূমি থেকে যতো বেশি উপরে ওঠা যায় ততো বেশি বায়ুপ্রবাহ পাওয়া সম্ভব। সাধারণ বায়ুচালিত টারবাইনগুলো যতো উঁচুতে স্থাপন করা সম্ভব ততো বেশি স্বাভাবিক গতিতে চলতে সক্ষম হয় সেগুলো। সউল এবং তার সহকর্মীরা এমন কিছু ঘুড়ির নকশা প্রণয়নে ব্যস্ত আছেন যা অনেক উঁচুতে ওড়ানো সম্ভব হবে এবং এদের সাহায্যে স্বল্প খরচে স্থির মাত্রায় বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব হবে। বর্তমানে মনুষ্যবিহীন আকাশ যানের কথা কম বেশি সবারই জানা আছে। এ ঘুড়িগুলোও সেই চালকবিহীন বিমানের মতো আকাশে উড়তে থাকে। এ অবস্থায় বায়ুচালিত টারবাইনের মতো ঘুড়ির প্রপেলারগুলো বাতাসের ধাক্কায় ঘুরতে থাকে। এ ধরনের ঘুড়িতে উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন মোটর সংযুক্ত করে বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব হয়েছে। উচ্চ বিভব ক্ষমতাসম্পন্ন তার সংযুক্তির মাধ্যমে উৎপাদিত সেই বিদ্যুৎকে মাটিতেও নামিয়ে আনা সম্ভব হয়েছে। বাতাস যখন খুব বেশি স্থির হয়ে থাকে তখন সামান্য শক্তি ব্যবহার করে ঘুড়ি যন্ত্রটিকে আকাশে উড়ন্ত অবস্থায় ধরে রাখা হয়। বাতাসের গতি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিদ্যুৎ উৎপাদনের মাত্রাও বহুগুণে বাড়তে থাকে। এ পদ্ধতি ব্যবহার করেই নবায়নযোগ্য শক্তি উৎপাদনের সমাধান সম্ভব জানান সউল। বর্তমানে গ্রিডে যোগ করার মতো বড় অঙ্কের বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে সউলের এ প্রতিষ্ঠানটি। বিশ্ব জুড়ে বৈজ্ঞানিকদের সবুজ শক্তি উৎপাদনসহ যাবতীয় কর্মযজ্ঞে এক সময় পরিবেশের স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে। ভবিষ্যৎ পৃথিবীও তাই মানুষের বাসযোগ্য থাকবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন সউল গ্রিফিথ।
সিএনএন অবলম্বনে

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: