জীবনে এমন কত বিচ্ছেদ, কত মৃত্যু আছে, ফিরিয়া লাভ কি? পৃথিবীতে কে কাহার…

“জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ২০৫০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের দুই তৃতীয়াংশ সমুদ্রগর্ভে বিলীন হয়ে যাবে। বসতভিটা হারিয়ে উদ্বাসত্মু হবে দেশের ৩ কোটি মানুষ। উন্নত দেশগুলো জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য দায়ি হলেও সবচেয়ে বেশি ‌ক্ষতিগ্রস্থ হবে উন্নয়নশীল দেশগুলো। বিশেষ করে দ্বীপপুঞ্জগুলো পৃথিবীর মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে।” শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ইক্যুয়িটি এন্ড জাস্টিস ওয়ার্কিং গ্রুপ বাংলাদেশ (ইক্যুইটিবিডি) আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা এসব তথ্য জানান।

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত প্রভাবের ফলে বাধ্য হয়ে স্থানচ্যুতদের আনত্মর্জাতিক স্বীকৃতি, তাদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক পুনর্বাসনের জন্যে জাতিসংঘের আওতায় নতুন সনদ প্রণয়নের দাবি জানান হয়।

“জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে স্থানচ্যুতদের জন্য আনত্মর্জাতিক স্বীকৃতিসহ নতুন জাতিসংঘের সনদ চাই” শীর্ষক এ সেমিনারে নিবন্ধপত্র উপস্থাপন করেন, ইক্যুইটিবিডির’ সেক্রেটারী জেনারেল মোঃ সামসুদ্দোহা। তিনি বলেন, আগামী ২০৫০ সালের মধ্যে বিশ্বের প্রায় ২৫০ মিলিয়ন লোক জলবায়ূ পরিবর্তনের বিভিন্ন নেতিবাচক প্রভাব, বিশেষ করে মরুময়তা বৃদ্ধি, সুপেয় পানির দুষ্প্রাপ্যতা, ক্রমবর্ধমান বন্যা ও ঝড় ইত্যাদি কারণে স্থানান্তরিত হতে পারে। অর্থাৎ বিশ্বে প্রতি ৪৫ জনে ১ জন জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে স্থানান্তকরণে বাধ্য হবে। ব্যাপক জনগোষ্ঠীর বাসত্মুচ্যুতি ও বাধ্যতামূলক স্থানান্তকরণের এই সংখ্যা জাতিসংঘ কর্তৃক নিবন্ধনকৃত উদ্বাসত্মু এবং অভ্যনত্মরীণভাবে স্থানচ্যুতদের বর্তমান সংখ্যার চেয়ে ১০গুণ বেশি।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: